সাম্প্রতিক শিরোনাম

অজ্ঞাত ট্রিপল খুনের রহস্য উদঘাটন, গ্রেফতার ২

‘পবিত্র ঈদুল আযহার আগের দিন গত ৩১ জুলাই ২০২০ মঠবাড়িয়া থানাধীন ধানীসাফা ইউনিয়নের ধানীসাফা গ্রামে একটি লোমহর্ষক হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়, যেখানে শিশুসন্তানসহ পুরো একটি পরিবারের ৩ সদস্য, স্বামী মোঃ আয়নাল হক (৩৫), স্ত্রী খুকুমণি (৩০) ও শিশুকন্যা আসফিয়া (৩)কে গলায় ফাঁস দিয়ে শ্বাসরোধ করে বসত ঘরের টিনের চালের আড়ার সঙ্গে ঝুলিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়।’

hiastock


‘মৃত খুকুমণির পিতা জনাব মোঃ আবুল কালাম সরদার বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে অফিসার ইনচার্জ, মঠবাড়িয়া থানা, পিরোজপুর বরাবর হত্যার অভিযোগে এজাহার দায়ের করেন ৷ উক্ত হত্যার ঘটনাটি সংঘটিত হওয়ার পর মঠবাড়িয়া থানা পুলিশ ও জেলা গোয়েন্দা শাখা, পিরোজপুর যৌথভাবে হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটনসহ হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের গ্রেফতারের জন্য নিরবচ্ছিন্নভাবে তদন্ত কার্যক্রম পরিচালনা করে৷’

‘পুলিশ নানা বিষয়ে গোপনতথ্য নিয়ে পর্যালোচনা করে। গোপনতথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ জানতে পারে আয়নাল হক গত ০৭/০৭/২০২০ এ ব্যাংক হতে টাকা উত্তোলন করে । এই তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ ব্যাপক অনুসন্ধান করে। পরে গোয়েন্দা তথ্য ও প্রযুক্তি সহায়তায় গত ০৮ আগস্ট ২০২০ হত্যাকাণ্ডের মাস্টারমাইন্ড কিলার মোহাম্মদ অলী বিশ্বাসকে (৩৮) গ্রেফতার করা হয় ৷ পরবর্তীতে তার দেয়া তথ্য অনুযায়ী ঘটনার সাথে জড়িত মোহাম্মদ রাকিব বেপারী (২০) কে গ্রেফতার করা হয় ৷ জিজ্ঞাসাবাদে তারা ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে৷ তাদের দেয়া তথ্যানুযায়ী হত্যাকাণ্ডে জড়িত পলাতক অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারের জন্য বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করা হয়৷’

‘দস্যুতাসহ এ হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত দেশীয় অস্ত্র ও লুণ্ঠিত মালামাল উদ্ধারের জন্য অত্র মামলার ঘটনাস্থল এবং মাস্টারমাইন্ড কিলার অলী বিশ্বাসের বসতবাড়িতে অভিযান পরিচালনা করে আসামি অলী বিশ্বাসের দেখানো মতে বাড়ির পুকুর হতে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত দুটি স্টিলের পাইপ একটি রামদা এবং তার বসত ঘর হতে একটি দেশীয় দা ও লুন্ঠিত কিছু নগদ অর্থ ও অন্যান্য মালামাল উদ্ধার করা হয়৷’

‘আসামিদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী জানা যায়, তারা মূলত দস্যুতা সংঘটিত করার জন্য মুখোশ পরিহিত অবস্থায় অটোচালক আয়নাল হকের বাড়ীতে প্রবেশ করেছিল কিন্তু আয়নাল হক অপরাধের মাস্টারমাইন্ড অলী বিশ্বাসের কণ্ঠস্বর শুনে আসামীদেরকে চিনে ফেলায় এবং তাদের নাম উচ্চারণ করায় আসামিরা নিজেদেরকে বাঁচাতে নির্মম এ হত্যাকাণ্ড সংঘটিত করে ৷

‘গ্রেফতারকৃত আসামী অলী বিশ্বাস ও মোহাম্মদ রাকিব বেপারীকে আদালতে হাজির করে পুলিশ। তারা এই হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে জবানবন্দি দেয় এবং হত্যাকাণ্ডে আরো দুজন জড়িত আছে মর্মে তারা জানায়। পলাতক আসামিদের গ্রেফতার পূর্বক বিচারের আওতায় আনার কাজ অব্যাহত আছে।’

সর্বশেষ খবর

জনপ্রিয় খবর

hiastock