সাম্প্রতিক শিরোনাম

বিগত ১০০ বছরে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত ব্যাটল ট্যাংক সভিয়েত ইউনিয়নের টি-৫৫

বিগত ১০০ বছরের মধ্যে বিশ্বের বুকে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত মেইন ব্যাটল ট্যাংক হচ্ছে সাবেক সভিয়েত ইউনিয়নের তৈরি টি-৫৫ মেইন ব্যাটল ট্যাংক। এটি মুলত ১৯৪৭ সালে প্রথম সার্ভিসে আনে সভিয়েত ইউনিয়ন এবং ১৯৮১ সাল পর্যন্ত মোট প্রায় ১ লক্ষ ইউনিট টি-৫৪/৫৫ ট্যাংক তৈরি করে। বিশ্বের সবচেয়ে পুরনো ট্যাংক হিসেবে এখনো পর্যন্ত ৫০টির অধিক দেশের সেনাবাহিনীতে ব্যবহার করা হচ্ছে এই জাতীয় পুরনো ট্যাংক।

টি-৫৪/৫৫ ট্যাংকের সবচেয়ে সফল ব্যবহার লক্ষ্য করা যায় দীর্ঘ মেয়াদী ভিয়েতনাম যুদ্ধে। এই যুদ্ধে সভিয়েত সমর্থিত উত্তর ভিয়েতনাম বাহিনী মার্কন সাহায্যপুষ্ট দক্ষিণ ভিয়েতনাম এলায়েন্স বাহিনীর বিরুদ্ধে ব্যাপকভাবে ব্যবহার করে মার্কিন সিবিরে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে। ১৯৬৫ সালে ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধসহ মধ্যপ্রাচ্যের আরব-ইসরাইল এবং উপসাগরীয় যুদ্ধেও এটি ব্যাপকভাবে ব্যবহার করা হয়। তাছাড়া ১৯৭১ সালে আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে ভারতের সেনাবাহিনী পাকিস্তানের বিরুদ্ধে এই ট্যাংকের সফল ব্যবহার করে।

৩৬ টন ওজনের টি-৫৫/৫৪ মেইন ব্যাটল ট্যাংকে মেইন গান হিসেবে একটি শক্তিশালী ১০০ মিলিমিটার ডি-১০টি রাইফেল গান সংযুক্ত করা আছে। এর পাশাপাশি এটি একটি হেভী মেশিনগান বহণ করে। এটি পরিচালনা করতে ৪ জন ক্রুর প্রয়োজন হয়। যুদ্ধক্ষেত্রে গতি সঞ্চারে টি-৫৫ মেইন ব্যাটল ট্যাংকে একটি ৫০০ হর্স পাওয়ারের ভি-৫৫ ওয়াটারকুল ডিজেল ইঞ্জিন ব্যবহার করা হয়েছে এবং প্রতি ঘন্টায় এর গতি ৫০ কিলোমিটারের কাছাকাছি।

তবে আকারে খুব ছোট হওয়ায় এর ভিতরে ক্রুরা খুব সমস্যায় পড়ে যেত। তবে এই রকম হালকা ওজনের ছোট্ট ট্যাংকের অত্যন্ত শক্তিশালী কামান যুদ্ধক্ষেত্রে একে বড় আকারের এবং ধীর গতির পশ্চিমা বিশ্বের ট্যাংকগুলোর বিরুদ্ধে ব্যাপক সাফল্য এনে দেয়।

আকারে অনেকটা ছোট হওয়া সত্ত্বেও সভিয়েত ইউনিয়ন এটিকে যুদ্ধক্ষেত্রে নিউক্লিয়ার, রসায়নিক এবং জৈব অস্ত্রের বিরুদ্ধে টিকে থাকার বিশেষ উপযোগী করে ডিজাইন করেছিল। তার পাশাপাশি এর উৎপাদন খরচ এবং বাজার মূল্য ছিল খুবই কম। এর সর্বশেষ ভেরিয়েন্টের আন্তর্জাতিক বাজার মূল্য ছিল ১ মিলিয়ন ডলারেরও কিছুটা কম। ষাট ও সত্তরের দশকের প্রেক্ষাপটে সভিয়েতরা এক দারুণ ট্যাংক হিসেবে টি-৫৫কে পশ্চিমাদের তৈরি অত্যন্ত ভারি ট্যাংকের বিরুদ্ধে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে এক নতুন ইতিহাস সৃষ্টি করেছিল।

বর্তমানে সারা বিশ্বে সার্ভিসে থাকা সভিয়েত আমলের টি-৫৫ মেইন ব্যাটল ট্যাংকের একটি টি-৫৪ নামে আলাদা ভার্সন ছিল। তবে ডিজাইন ও সক্ষমতার বিচারে ট্যাংক দুটি অনেক ক্ষেত্রেই একই রকমের হওয়ায় এবং পরবর্তীতে এর আরো উন্নত সংস্করণ সার্ভিসে চলে আসায় এই জাতিয় সকল মেইন ব্যাটল ট্যাংককেই টি-৫৪/৫৫ ভেরিয়েন্ট বা সিরিজ করে ফেলা হয়।

সর্বশেষ

রোলস-রয়েল পুরস্কারের গুজব উড়িয়ে দিলেন সৌদি জাতীয় দলের ফুটবলার

দুবাই: সৌদি আরবের জাতীয় দলের একজন ফুটবলার রোলস-রয়েল পুরস্কারের গুজবকে অস্বীকার করেছেন। বিভিন্ন গনমাধ্যমে গুজব উঠে যে প্রতিটি খেলোয়াড়কে ফিফা বিশ্বকাপ কাতার ২০২২ গ্রুপ...

রূপপুর পারমাণবিক কেন্দ্রের ট্রেনিং সেন্টারে বাংলাদেশী বিশেষজ্ঞদের প্রশিক্ষণ শুরু

নির্মাণাধীন রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নিরাপদে পরিচালনার জন্য বাংলাদেশী বিশেষজ্ঞদের প্রশিক্ষণ শুরু হয়েছে। রূপপুর প্রকল্প সাইটে অবস্থিত ট্রেনিং সেন্টারে চলতি মাস থেকে দু’টি গ্রুপ...

আর্টিলারির ধ্বংসাত্মক ক্ষমতার নতুন যুগে বাংলাদেশ

TRG-300 টাইগার মাল্টিপল লঞ্চ রকেট/মিসাইল সিস্টেম সেনাবাহিনীতে অন্তর্ভুক্তির মধ্যে দিয়ে রাতারাতি আর্টিলারি সক্ষমতা বৃদ্ধি পেয়েছে বাংলাদেশের। এই সিস্টেমটি যুক্ত হওয়ার আগে বাংলাদেশের আর্টিলারি হামলার...

সিত্রাঙ্গ এর কবলে সাগরে হারিয়ে যাওয়া ২০ বাংলাদেশী জেলেকে উদ্ধার ভারতীয় কোস্টগার্ডের

ঘূর্ণিঝড় সিত্রাঙ্গ এর কবলে গভীর সাগরে হারিয়ে যাওয়া ২০ বাংলাদেশী জেলেকে উদ্ধার করেছে ইন্ডিয়ান কোস্টগার্ড।ঘূর্ণিঝড় পরবর্তী সময়ে ইন্ডিয়ান কোস্টগার্ডের সার্চ এন্ড রেসকিউ অপারেশন চলাকালীন...