সাম্প্রতিক শিরোনাম

কুমিল্লায় ঈদের জামাতে ছিল করোনা রোগী, এলাকায় আ’তঙ্ক

কুমিল্লায় নতুন করে আরও ৩৭ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জে’লায় ক’রোনা আ’ক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৬৭২ জনে। মঙ্গলবার (২৬ মে) নতুন করে ক’রোনাভা’ইরাসে আরও দুইজনের মৃ’ত্যুর মধ্য দিয়ে এ সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২২ জনে।

hiastock

অন্যদিকে, করোনায় আক্রান্ত কুমিল্লা জেনারেল হাসপাতালের গাইনি বিভাগের তিনজন চিকিৎসকের সঙ্গে বৈঠক করায় জে’লা সিভিল সার্জন ডা. নিয়াতুজ্জামানসহ জেনারেল হাসপাতালের ২১ জন চিকিৎসক হোম কোয়ারেন্টাইনে গেছেন।

সোমবার রাত থেকে জেলার বিভিন্ন উপজে’লা থেকে ২০ জন চিকিৎসক এনে বিশেষ ব্যবস্থায় ওই হাসপাতালের চিকিৎসা কার্যক্রম স’চল রাখা হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেলে এসব তথ্য জানিয়েছেন হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা কুমিল্লার সিভিল সার্জন ডা. নিয়াতুজ্জামান।

তিনি বলেন, রোববার দুপুরে হাসপাতালের চিকিৎসকদের নিয়ে পুরাতন সভা কক্ষে একটি জ’রুরি সভা করা হয়। এতে ২০ জন চিকিৎসক এবং আরও কয়েকজন কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন।

কিন্তু রাতে আমরা জানতে পারি বৈঠকে থাকা তিনজন গাইনি বিভাগের চিকিৎসকের ক’রোনা শ’নাক্ত হয়েছে। পরে ক’রোনাভা’ইরাস সং’ক্রমণ রো’ধে গাইনি বিভাগসহ প্রতিটি ওয়ার্ড জীবাণুমু’ক্ত করা হয়। বৈঠকে অংশ নেয়া আমিসহ ২১ জন চিকিৎসক কোয়ারেন্টানে চলে যাই।

সদর হাসপাতালের একজন কর্মক’র্তা জানান, হাসপাতালের বিভিন্ন ওয়ার্ডে রোগীদের চা’প বেশি। তাই সোমবার রাত থেকে বিভিন্ন উপজে’লা থেকে ২০ জন চিকিৎসক এনে বিকল্প ব্যবস্থায় চিকিৎসা ব্যবস্থা সচল রাখা হয়েছে।

জে’লা সিভিল সার্জনের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে মঙ্গলবার বিকেলে নতুন করে আরও ৩৭ ক’রোনায় আ’ক্রান্ত ও দুইজনের মৃ’ত্যুর তথ্য জানানো হয়েছে। নতুন আ’ক্রান্তদের মধ্যে মুরাদনগরে আটজন, চান্দিনায় ১৪, বরুড়ায় দুইজন, লাকসাম পাঁচজন, সিটি কর্পোরেশন এলাকায় চারজন এবং হোমনা, মেঘনা, দেবিদ্বার ও মেডিকেল কলেজে একজন করে।

অপরদিকে কুমিল্লার মনোহরগঞ্জে ক’রোনা আ’ক্রান্ত হয়েও এক যুবক (২৫) জা’মাতে পড়লেন ঈদের না’মাজ। পরে তিনি একইদিনে ওই গ্রামে একটি জানাজার না’মাজেও অংশগ্রহন করেন। ঈদের দিন উপজে’লার বাইশগাঁও ইউপির নোয়াগাঁও গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

মঙ্গলবার কুমিল্লা জে’লা ক’রোনা সং’ক্রমণ প্রতিরো’ধ সমন্বয়ক ও মনোহরগঞ্জ উপজে’লা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মক’র্তা ডা. নিসর্গ মেরাজ চৌধুরী ওই যুবকের ‘করোনা আ’ক্রান্তের বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তবে আ’ক্রান্ত ওই ব্যক্তির শরীরে কোনো রকম উপসর্গ নেই বলেও জানান তিনি।

এদিকে বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর এলাকার সাধারণ মানুষের মধ্যে আ’তঙ্ক ও উৎ’কণ্ঠা বিরাজ করছে। উপজে’লা প্রশা’সন বাড়িটি লকডাউন করেছে। মনোহরগঞ্জ উপজে’লা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, আ’ক্রান্ত ওই যুবক ঢাকার ই’সলামপুরে কাপড়ের ব্যবসা করেন।

নিজ বাড়িতে আসার পর খবর পেয়ে গত শনিবার উপজে’লা স্বাস্থ্য বিভাগ তার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য ল্যাবে পাঠায় এবং প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দিয়ে তাকে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দে’শনা দেন। কিন্তু নির্দে’শনা অমান্য করে তিনি নিজ গ্রামেই জামাতে ঈদের না’মাজ আদায় ও একটি জানাজার না’মাজে অংশ গ্রহণ করেন।

এ ব্যাপারে মনোহরগঞ্জ উপজে’লা নির্বাহী কর্মক’র্তা (ইউএনও) সোহেল রানা ওই যুবকের ক’রোনা আ’ক্রান্তের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনাটি জানার পর আজ ওই বাড়িটি লকডাউন করা হয়েছে।

অপরদিকে জে’লায় মোট ক’রোনা আ’ক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৬৭২ জনে। সুস্থ হয়েছেন ৯৬ জন। নতুন করে চান্দিনায় মান্নান খান এবং দেবিদ্বারের রাজামেহার ইউনিয়নের গাংচর গ্রামের মোর্শেদ আলম করোনায় মা’রা গেছেন। এ পর্যন্ত জে’লার বিভিন্ন উপজে’লা থেকে সাত হাজার ৪৫১ জনের নমুনা পাঠানোর পর রিপোর্ট এসেছে ছয় হাজার ৮৩৭ জনের। এর মধ্যে মোট পজিটিভ ফলাফল এসেছে ৬৭২ জনের।

চান্দিনা উপজে’লা স্বাস্থ্য কর্মক’র্তা ডা. আহসানুল হক মিলু বলেন, উপজে’লার মহারম গ্রামের মান্নান খান নামের এক বক্তি ক’রোনায় আ’ক্রান্ত হয়ে ঈদের দিন রাতে বাড়িতে মা’রা গেছেন।

আগে ওই ব্যক্তির ক’রোনা প’জিটিভ আসায় বাড়িতে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। কিছুটা সুস্থ হয়েছিলেন তিনি। কিন্তু ঈদের দিন রাতে হঠাৎ মা’রা যান তিনি। এ নিয়ে উপজে’লায় ক’রোনায় আ’ক্রান্ত হয়ে চারজনের মৃ’ত্যু হয়েছে।

কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. মজিবুর রহমান বলেন, গত কয়েকদিনে হাসপাতালের ১৭ জন চিকিৎসক, নার্স ও প্যাথলজিস্ট ক’রোনায় আ’ক্রান্ত হয়েছেন। তাদের কোয়ারেন্টাইনে রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। চিকিৎসার অগ্রগতি জানতে ৩-৪ দিন পর তাদের নমুনা পরীক্ষা করা হবে।

সর্বশেষ খবর

জনপ্রিয় খবর

hiastock