বাংলা সাহিত্যের একমাত্র মহাকবির প্রয়াণবার্ষিকী আজ

বাংলা সাহিত্যের একমাত্র সার্থক মহাকবি ও বাংলার নবজাগরণ সাহিত্যের অন্যতম পুরোধা ব্যক্তিত্ব মাইকেল মধুসূদন দত্ত ৷

hiastock

মাইকেল মধুসূদন দত্ত যাঁর পিতৃপ্রদত্ত নাম ‘শ্রী মধুসূদন দত্ত ৷ তিনি বাংলা সাহিত্যের একমাত্র সার্থক মহাকাব্যিক ও মহাকাব্যের জনক, ট্র্যাজিক নাটকের স্রষ্টা, বহুভাষাবিদ, বাংলা সাহিত্যের প্রথম সার্থক নাট্যকার, সনেট ও অমিত্রাক্ষর ছন্দের প্রবর্তক ও জনক, কবি, নাট্যকার, প্রহসনকার, অনুবাদক, বাংলার নবজাগরণ সাহিত্যের অন্যতম পুরোধা ব্যক্তিত্ব, বাংলা সাহিত্যের রেনেসাঁস, আধুনিক বাংলা সাহিত্যের প্রথম বিদ্রোহী কবি এবং বাংলা কাব্যসাহিত্যে আধুনিকতার জনক ৷

প্রথম যৌবনে মধুকবি পাশ্চাত্য সাহিত্যের দুর্নিবার আকর্ষণবশত ইংরেজি ভাষায় সাহিত্য রচনায় মনোনিবেশ করেন । জীবনের দ্বিতীয় পর্বে মধুসূদন আকৃষ্ট হন নিজের মাতৃভাষার প্রতি । এই সময়েই তিনি বাংলায় নাটক, প্রহসন ও কাব্যরচনা করতে শুরু করেন ৷ মাইকেল মধুসূদন বাংলা ভাষায় সনেট ও অমিত্রাক্ষর ছন্দের প্রবর্তক । তাঁর সর্বশ্রেষ্ঠ কীর্তি অমিত্রাক্ষর ছন্দে রামায়ণের উপাখ্যান অবলম্বনে রচিত ‘মেঘনাদবধ কাব্য’ নামক মহাকাব্য ৷ বাংলা সাহিত্যের প্রথম সার্থক নাটক ‘শর্মিষ্ঠা’ এবং বাংলা সাহিত্যের প্রথম সার্থক ট্রাজেডি নাটক “কৃষ্ণকুমারী” তাঁরই সৃষ্টি ৷

মাইকেলের ব্যক্তিগত জীবন ছিল নাটকীয় এবং বেদনাঘন ৷ মধুসূদন দত্ত তাঁর সাহিত্য জীবনে বিশেষ করে ইংরেজ কবি লর্ড বায়রন’র সাহিত্য কর্ম এবং তাঁর জীবন দ্বারা অত্যন্ত বেশি অনুপ্রাণিত হয়ে ছিলেন । তাঁর মহান সৃষ্টি ‘মেঘনাদবধ’ মহাকাব্য প্রকাশ এবং এটি পরিচিত করে তোলা যদিও খুব সহজ ছিল না, তারপরও তিনি নিজেকে মহাকাব্যটির মাধ্যমে বাংলা সাহিত্যে এক স্বতন্ত্রভাব প্রকাশ করেছিলেন । তারই অংশ হিসেবে তিনি কাব্যে প্রথম হোমেরিক স্টাইলের লেখার প্রবর্তন করেন । তিনি এক সময় নিজেকে বলেছিলেন: “আমি এক সকালে উঠে নিজেকে সফল হিসেবে পাই নি, এই কাব্যের সফলতা বহু বছরের কঠিন পরিশ্রমের মাধ্যমেই সম্ভব হয়েছে।”

মাইকেল মধুসূদন দত্ত একাধারে ছিলেন বহু ভাষাবিদ । শিশু কালে গ্রামের টোল থেকে তার ফারসি ভাষা শিক্ষার মাধ্যমে ভাষা শিক্ষার শুরু হয় । তিনি ইংরেজি ছাড়াও ল্যাটিন, গ্রিক, ফারসি, হিব্রু, তেলেগু, তামিল ইত্যাদি ভাষায় অনায়াসে কথা বলতে পারতেন । তিনি এমনকি ফারসি ও ইতালীয় ভাষায় কবিতাও লিখতে পারতেন । মাতৃভাষা ছাড়া তিনি আরো বারোটি ভাষা জানতেন । বাংলা সাহিত্যের এই জ্ঞানবান কবি বাংলা ও ইংরেজি দুই সাহিত্যেই সুপণ্ডিত ছিলেন ৷ এছাড়াও তিনি বাংলা সাহিত্যের রেনেসাঁসের আবির্ভাব ঘটান তাঁর মহাপ্রতিভাশালী পাণ্ডিত্যের প্রভাবে! ইংরেজি সাহিত্য থেকে জ্ঞান আহরণ করে তিনি বাংলা সাহিত্যভাণ্ডে অনেক সাহিত্যসম্পদ উপহার দিয়েছেন ৷

আজ বাংলা সাহিত্যের এই মহাকবির প্রয়াণবার্ষিকীতে জানাই অশেষ শ্রদ্ধা ও সশ্রদ্ধ সম্মান ৷

সর্বশেষ

কাল সারাদিন চলাচল করবে গণপরিবহন

দেশের বিভিন্ন প্রান্তে থাকা শ্রমিকরা ঢাকার দিকে যাত্রার দুর্ভোগ কমাতে এক দিনের জন্য ছাড় দিয়েছে সরকার। আজ শনিবার রাতে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে সব জেলার...

পাবনায় মোবাইলে বিয়ের ২ বছরেও দেশে আসেনি স্বামী, প্রবাসীর স্ত্রীর আত্মহত্যা

পাবনার সাঁথিয়ায় মুঠোফোনে ভিডিও কলের মাধ্যমে পারিবারিকভাবে বিয়ের দুই বছরের মাথায় এক প্রবাসীর স্ত্রী আত্মহত্যা করেছে। গত দুই বছরেও ওই প্রবাসী দেশে আসেনি বলে জানান...

র‍্যাবের হাতে হেলেনা জাহাঙ্গীর আটক

দীর্ঘ প্রায় চার ঘণ্টা অভিযান শেষে আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক উপ-কমিটির সদস্যপদ থেকে অব্যাহতি পাওয়া আলোচিত হেলেনা জাহাঙ্গীরকে আটক করেছে র‌্যাব। বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) রাত...

ঈদের দিনেও করোনায় মৃত ঢাবি ছাত্রের মায়ের লাশ দাফন করলো ছাত্রলীগ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের এক ছাত্রের মা রাজধানীর ইবরাহিম কার্ডিয়াক হাসপাডালে বিকেলে মারা গেলে, লাশ দাফনকার্যে কেউ এগিয়ে না আসলে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের হটলাইন নাম্বারে...