সাম্প্রতিক শিরোনাম

গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়নে দুই হাজার ২০৩ কোটি টাকা বরাদ্দ

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়নে চলতি অর্থবছরে দুই হাজার ২০৩ কোটি ৭৭ লক্ষ টাকা বরাদ্দ দিয়েছে।

এর মধ্যে কাবিটায় (কাজের বিনিময়ে টাকা) ১ম কিস্তিতে ৩৮০ কোটি ৫১ লক্ষ এবং ২য় কিস্তিতে ২৭৯ কোটি ৫২ লক্ষ টাকাসহ মোট ৬৬০ কোটি ২ লক্ষ টাকা।

টিআর (টেস্ট রিলিফ) খাতে ১ম ও ২য় কিস্তিতে ২৭৮ কোটি টাকা করে মোট ৫৫৬ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। অর্থাৎ কাবিটা ও টিআর খাতে ১ম ও ২য় কিস্তিতে মোট এক হাজার ২১৬ কোটি ২ লক্ষ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য অফিসার সেলিম হোসেনের পাঠানো তথ্য বিবরণী এ বরাদ্দের কথা জানানো হয়েছে।

এছাড়াও মুজিববর্ষ উপলক্ষে চলমান কর্মসূচির আওতায় অধিক গ্রামীণ অবকাঠামোর উন্নয়ন কার্যক্রম বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়।

সে লক্ষ্যে এবার ১ম ও ২য় কিস্তির অতিরিক্ত ৩য় কিস্তিতে অর্থ বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। প্রথম বারের মত এবার ৩য় কিস্তিতে কাবিটা খাতে ৫৭০ কোটি ৭৭ লক্ষ টাকা এবং টিআর খাতে ৪১৭ কোটি অর্থাৎ ৯৮৭ কোটি ৭৭ লক্ষ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

বর্তমান সরকারের নির্বাচনী ইশতেহারের আমার গ্রাম আমার শহর বাস্তবায়নে এসব বিশেষ বরাদ্দ দেশের প্রতিটি গ্রামকে নগর সুবিধার আওতায় আনতে ভ‚মিকা রাখতে সহায়ক হবে। গ্রামীণ রাস্তা-ঘাট নির্মাণ ও সংস্কার এবং অবকাঠামো উন্নয়নে এসব অর্থ ব্যয় করা হবে।

প্রতিটি নির্বাচনী এলাকার মাননীয় সংসদ সদস্য, বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসক, উপজেলা পরিষদ এবং পৌরসভার অনুক‚লে এসব বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

৩য় কিস্তিতে সংসদ সদস্যগণকে প্রতি নির্বাচনী এলাকায় কাবিটা খাতে ১ কোটি ৭ লক্ষ ৮১ হাজার ২৮৪ টাকা করে এবং টিআর খাতে ৭৪ লক্ষ ৩৬ হাজার ৫০০ টাকা করে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

এছাড়া প্রতিটি সংরক্ষিত মহিলা আসনে কাবিটা খাতে ৩৪ লক্ষ ২৪ হাজার ৬৪৩ টাকা এবং টিআর খাতে ২৫ লক্ষ ২ হাজার টাকা করে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

উপজেলা পরিষদে কাবিটা খাতে গড়ে ৫২ লক্ষ ২০ হাজার ৪৯২ টাকা এবং টি.আর খাতে ২৯ লক্ষ ৬৬ হাজার ৪৬৩ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

তাছাড়া প্রতিটি বিভাগে টিআর খাতে ৭৮ লক্ষ ১৮ হাজার ৭৫০ টাকা করে মোট ৬ কোটি ২৫ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা ও প্রতিটি জেলায় ১৯ লক্ষ ৫৪ হাজার ৬৮৭ টাকা করে মোট ১২ কোটি ৫০ লক্ষ ৯৯ হাজার ৯৬৮ টাকা এবং প্রতিটি পৌরসভায় ৫ লক্ষ ৮ হাজার ৫৩৬ টাকা করে বরাদ্দ দেয়া হয়।

গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়নের লক্ষ্যে মুজিব বর্ষ উপলক্ষ্যে সর্বমোট ২২০৩ কোটি ৭৭ লক্ষ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। বরাদ্দকৃত অর্থে গ্রামীণ অবকাঠামো তৈরি হলে ২০৪১ সালের উন্নত বাংলাদেশ গড়ার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

সর্বশেষ

রোলস-রয়েল পুরস্কারের গুজব উড়িয়ে দিলেন সৌদি জাতীয় দলের ফুটবলার

দুবাই: সৌদি আরবের জাতীয় দলের একজন ফুটবলার রোলস-রয়েল পুরস্কারের গুজবকে অস্বীকার করেছেন। বিভিন্ন গনমাধ্যমে গুজব উঠে যে প্রতিটি খেলোয়াড়কে ফিফা বিশ্বকাপ কাতার ২০২২ গ্রুপ...

রূপপুর পারমাণবিক কেন্দ্রের ট্রেনিং সেন্টারে বাংলাদেশী বিশেষজ্ঞদের প্রশিক্ষণ শুরু

নির্মাণাধীন রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নিরাপদে পরিচালনার জন্য বাংলাদেশী বিশেষজ্ঞদের প্রশিক্ষণ শুরু হয়েছে। রূপপুর প্রকল্প সাইটে অবস্থিত ট্রেনিং সেন্টারে চলতি মাস থেকে দু’টি গ্রুপ...

আর্টিলারির ধ্বংসাত্মক ক্ষমতার নতুন যুগে বাংলাদেশ

TRG-300 টাইগার মাল্টিপল লঞ্চ রকেট/মিসাইল সিস্টেম সেনাবাহিনীতে অন্তর্ভুক্তির মধ্যে দিয়ে রাতারাতি আর্টিলারি সক্ষমতা বৃদ্ধি পেয়েছে বাংলাদেশের। এই সিস্টেমটি যুক্ত হওয়ার আগে বাংলাদেশের আর্টিলারি হামলার...

সিত্রাঙ্গ এর কবলে সাগরে হারিয়ে যাওয়া ২০ বাংলাদেশী জেলেকে উদ্ধার ভারতীয় কোস্টগার্ডের

ঘূর্ণিঝড় সিত্রাঙ্গ এর কবলে গভীর সাগরে হারিয়ে যাওয়া ২০ বাংলাদেশী জেলেকে উদ্ধার করেছে ইন্ডিয়ান কোস্টগার্ড।ঘূর্ণিঝড় পরবর্তী সময়ে ইন্ডিয়ান কোস্টগার্ডের সার্চ এন্ড রেসকিউ অপারেশন চলাকালীন...