সাম্প্রতিক শিরোনাম

শোক দিবসে খালেদা জিয়ার জন্মদিন পালন করেনি বিএনপি

১৯৯১ সালে প্রথমবারের মতো প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর থেকেই খালেদা জিয়া নিজে এবং তাঁর দল বিএনপির নেতাকর্মীরা ঘটা করে কেক কেটে ১৫ আগষ্ট শোকের দিনে জন্মদিন পালন করা শুরু করে।

hiastock

তাঁর একাদিক জন্মদিন রয়েছে। তবে ব্যাপক সমালোচনার মুখে গত ৫ বছর ধরে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া নিজে এবং তাঁর দলের নেতাকর্মীরা ১৫ আগষ্ট জন্মদিন পালন করছে না।

তবে খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি ও দীর্ঘায়ু কামনা করে দেশব্যাপী দোয়া মাহফিল করেছে বিএনপি। শনিবার দুপুরে নয়া পল্টন বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দোয়া মাহফিলে অংশ নিয়ে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, খালেদা জিয়াকে মুক্ত বলা হলেও কার্যত তিনি মুক্ত না। তবে দোয়া মাহফিলের ব্যানারে জন্মদিনের কোনো কথা লেখা ছিলো না।

রিজভী বলেন,অত্যন্ত দুঃসময়ে বসবাস করছি। যে সময়টাতে কথা বলতে ভয়। কথা বললেই হামলা-মামলা, গুম, খুন হত্যা ও জেল। কে কখন এই সরকারের নির্যাতনের স্বীকার হবে তার কোন ইয়ত্বা নেই।

তিনি বলেন, বিএনপি খালেদা জিয়াকে সম্পূর্ণ রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে সাজা দেয়া হয়েছে। তাকে এখন মুক্ত বলা হলেও কার্যত তিনি মুক্ত না।

একটা সরকার ১২ বছর জোর করে ক্ষমতায় থাকে, কিভাবে জনগনের টাকা লুট করে? রিজভী বলেন, দীর্ঘ দুই বছর আমাদের নেত্রী খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে জেলে রাখা হলেও তিনি আপোষ করেনি। তিনি যেকোন সঙ্কটে জনগনকে ছেড়ে যাননি।

খালেদা জিয়াকে দুই বছর অন্যায়ভাবে সাজা দিয়ে জেলে রাখা হয়েছে। তবুও তিনি অক্ষয়-অব্যয় গণতন্ত্রের প্রশ্নে মাথা নত করননি। আমরা দুঃসময় ও অন্ধকার থেকে মুক্তি পাবো খালেদা জিয়াকে যখন আমাদের সাথে পাবো। আমি খালেদা জিয়ার দীর্ঘায়ু ও সুসাস্থ্য কামনা করছি।

ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, তিনি বলেছেন বিএনপি দূর্নীতির পৃষ্টিপোষক। তাহলে পদ্মা সেতুর কেলেঙ্কারি কি বিএনপির সময় হয়েছে? রিসেন্ট হাসপাতালের দুর্নীতি কি বিএনপির সময় হয়েছে? জেকেজির ভূয়া করোনা টেস্ট কি বিএনপির সময় হয়েছে? আপনারা বড় বড় কথা না বলে আয়নার সামনে দাঁড়ান। আপনাদের দুর্নীতি নিয়ে যদি নাটক বানানো হয় সে নাটক হবে মহানাটক।

মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সভাপতি ও কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব হাবিব-উন-নবী খান সোহেলের সভাপতিত্বে দোয়া মহফিলে আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর সরফত আলী সপু, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ, শহিদুল ইসলাম বাবুল, বিএনপি নেতা শামীমুর রহমান, ডা. রফিকুল ইসলাম, হায়দার আলী খান লেলিন, কাজী আবুল বাশার, রফিক শিকদার, শ্রমিক দলের সভাপতি আনোয়ার হোসেইন, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের ভুঁইয়া জুয়েল, ছাত্র দলের ফজলুর সভাপতি রহমান খোকন প্রমুখ। দোয়া মাহফিলে মোনাজাত পরিচালনা করেন ওলামা দলের সদস্য সচিব মাওলানা নজরুল ইসলাম তালুকদার।

সর্বশেষ খবর

জনপ্রিয় খবর

hiastock