সাম্প্রতিক শিরোনাম

শতভাগ বিদ্যুতায়নের দ্বারপ্রান্তে শেখ হাসিনার সরকার

শতভাগ বিদ্যুতায়ন কর্মসূচি বাস্তবায়নের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে গেছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার।

মুজিববর্ষেই দেশের শতভাগ এলাকা বিদ্যুতায়নের আওতায় চলে আসবে। আর শতভাগ বিদ্যুতায়ন হতে আর মাত্র তিন শতাংশ এলাকা বাকি আছে। এখন শুধু দুর্গম চরাঞ্চলের কিছু অফগ্রিড এলাকায় বিদ্যুতায়ন বাকি আছে।

করোনা পরিস্থিতির জন্য এসব এলাকায় বিদ্যুৎ পৌঁছাতে কিছুটা সময় লাগতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যেই গ্রিড এলাকায় শতভাগ বিদ্যুতায়ন কর্মসূচির লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হবে বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।

আশার কথা হচ্ছে, দ্রুতগতিতে কাজ করায় সরকারের নির্ধারিত সময়ের এক বছর আগেই শতভাগ বিদ্যুতায়নের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে যাচ্ছে বাংলাদেশ।

বিদ্যুৎ বিভাগের কাছ থেকে পাওয়া তথ্যে, বর্তমানে দেশের ৯৭ ভাগ মানুষের কাছে বিদ্যুৎসুবিধা পৌঁছে গেছে। বলা হচ্ছে আগামী বছরের আগস্ট মাসের আগেই অফগ্রিড এলাকায় সৌরবিদ্যুতের মাধ্যমে বিদ্যুৎ পৌঁছে যাবে।

সরকার বেশ কিছু সৌরবিদ্যুৎ প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। শতভাগ বিদ্যুতায়ন কর্মসূচির আওতায় আগামীকাল দেশের ১৮টি জেলার ৩১টি উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুতায়ন কার্যক্রম উদ্বোধন করা হবে।

গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি এর উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ ছাড়া এদিন ১৯টি নতুন বৈদ্যুতিক স্থাপনার যাত্রা শুরু হবে।

আশা করছি করোনাকালেও গ্রিড সেক্টরে এ বছরই শতভাগ বিদ্যুতায়নের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করব। এরই মধ্যে ৯৭ শতাংশ বিদ্যুতায়নের কাজ হয়ে গেছে। আমাদের লক্ষ্যমাত্রা ছিল অফগ্রিড এলাকা, অর্থাৎ চরাঞ্চলসহ শতভাগ বিদ্যুতায়নের কাজ এ বছর শেষ করব।

বর্তমান পরিস্থিতির কারণে এই অফগ্রিড এলাকাগুলোর জন্য হয়তো শতভাগ বিদ্যুতায়নের কাজ শেষ হবে না। আবার কিছু নতুন চর সৃষ্টি হওয়ায় সেখানেও এখন বাড়িঘর তৈরি হয়েছে। এগুলো আমাদের মাস্টারপ্ল্যানের বাইরে ছিল। এ ক্ষেত্রে এই এলাকাগুলোতে বিদ্যুৎ পৌঁছাতে আগামী বছর পুরোটাই লেগে যাবে।

তবে আগের মাস্টারপ্ল্যান অনুযায়ী আমরা আশা করছি, চলতি বছরের ডিসেম্বরেই গ্রিড সেক্টরে শতভাগ বিদ্যুতায়নের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হবে।

প্রতি বছর ডিসেম্বর মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহটি ‘বিদ্যুৎ সপ্তাহ’ হিসেবে পালন করা হয়। এবার সে সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শতভাগ বিদ্যুতায়নের ঘোষণা দেবেন বলে আশা করা হচ্ছে। এরই মধ্যে অফগ্রিড এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহের জন্য দেশের চারটি বিতরণ কোম্পানিকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড, বিদুৎ উন্নয়ন বোর্ড, নর্দান ইলেকট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি এবং ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানিকে এই দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

১১ বছরে আওয়ামী সরকারের প্রচেষ্টায় ২৭টি বিদ্যুৎ কেন্দ্র বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩৮টিতে। এর মধ্যে ২০১৯-২০ অর্থবছরে এসে পাঁচটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র অবসরে গেছে। এ সময় মোট উৎপাদিত বিদ্যুৎ ৩ হাজার ২৬৮ মেগাওয়াট থেকে বৃদ্ধি পেয়ে সর্বোচ্চ (২৪ আগস্ট বিকাল পর্যন্ত) ১৪ হাজার ৫৭৬ মেগাওয়াট হয়েছে।

বিদ্যুতের সুবিধাপ্রাপ্ত জনগোষ্ঠীর সংখ্যা ৪৭ শতাংশ থেকে বৃদ্ধি পেয়ে ৯৭ শতাংশে পৌঁছেছে। মাথাপিছু বিদ্যুৎ উৎপাদন ২২০ কিলোওয়াট ঘণ্টা থেকে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫১২ কিলোওয়াট ঘণ্টা। আর বিদ্যুতের গ্রাহকসংখ্যা ১ কোটি ৮ লাখ থেকে হয়েছে ৩ কোটি ৭৪ লাখ।

সর্বশেষ

ঈশ্বরদীতেও দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৭.৮ ডিগ্রি

পাবনার ঈশ্বরদীতে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। শুরু হয়েছে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ। ঘন কুয়াশা ও হিমেল বাতাসে বিপর্যস্ত হয়ে হয়ে পড়েছে জনজীবন।বুধবার (১১ জানুয়ারি)...

আফগানিস্তানে অন্তর্ভূক্তিমূলক আর্থ-সামাজিক অগ্রগতি দেখতে চায় বাংলাদেশ

প্রতিবেশী হিসেবে বাংলাদেশ আফগানিস্তানে অন্তর্ভুক্তিমূলক আর্থ-সামাজিক অগ্রগতি দেখতে চায়, যেখানে আফগান জনগণ তাদের উন্নত জীবনের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে পারে। সম্প্রতি আফগানিস্তানের উচ্চ শিক্ষা এবং...

গণতন্ত্রের নামে বাংলাদেশে অন্য রাষ্ট্রের হস্তক্ষেপের সুযোগ নেই বলছে রাশিয়া

গণতন্ত্রের অজুহাত দিয়ে বাংলাদেশ কিংবা অন্য কোনো দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে বাইরের কারো হস্তক্ষেপ করার সুযোগ নেই। কোনো রাষ্ট্রে স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের সুরক্ষায় জাতিসংঘের ঘোষণায়...

র‍্যাবের উপর নিষেধাজ্ঞা দেয়া হবেনা, লবিষ্টকে জেরার আপিল করতে পারবে বাংলাদেশ

যুক্তরাষ্ট্র এবং যুক্তরাজ্যে র‍্যাবের কার্যক্রমে নিষেধাজ্ঞা আরোপের ব্যপারে শক্তিশালী লবিস্ট নিয়োগ করা হলেও সে পদক্ষেপ ভেস্তে গিয়েছে।এরই মধ্যে র‍্যাপিড একশন ব্যাটালিয়ন-র‍্যাবের ব্যপারে নিষেধাজ্ঞার আবেদন...