সাম্প্রতিক শিরোনাম

রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টায় আরো ১৮ জনের মৃত্যু

রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে গেল ২৪ ঘণ্টায় আরো ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৮ জুলাই) সকাল ৯টা থেকে শুক্রবার (৯ জুলাই) সকাল ৯টার মধ্যে মারা যান তারা।

শুক্রবার (৯ জুলাই) সকালে রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এর আগের দিনও ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছিল এই হাসপাতালে।

শামীম ইয়াজদানী বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় যে ১৮ জন মারা গেছেন, তাদের মধ্যে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে করোনায়। এ ছাড়া ১৫ জন করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন। মারা যাওয়া ১৮ জনের মধ্যে ১০ জনের বাড়ি রাজশাহী জেলায়।

এ ছাড়া নওগাঁর দুজন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের দুজন, নাটোরের দুজন, সিরাজগঞ্জের একজন এবং কুষ্টিয়ার একজন মারা গেছেন। করোনা সংক্রমণ ও উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে এসেছিলেন তারা।

রামেক হাসপাতাল পরিচালক জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ চারজন মারা গেছেন রামেক হাসপাতালের ১৪ নম্বর ওয়ার্ডে। এ ছাড়া নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্র (আইসিইউ) ও ২২ নম্বর ওয়ার্ডে তিনজন করে, ১৫ ও ২৫ নম্বর ওয়ার্ডে দুজন করে এবং ৩, ৪, ১৬ ও ২২/৩০ নম্বর ওয়ার্ডে একজন করে মারা গেছেন।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা সংক্রমণে মারা গেছেন রাজশাহীর দুজন ও নওগাঁর একজন। এ ছাড়া উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া ১৫ জনের মধ্যে রাজশাহীর ৮ জন, দুজন করে নাটোর ও চাঁপাইনবাবগঞ্জের এবং একজন করে নওগাঁ, কুষ্টিয়া ও সিরাজগঞ্জের বাসিন্দা। স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাদের মরদেহ দাফনের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

৪৫৪ শয্যার করোনা ইউনিটে শুক্রবার সকাল ৯টা পর্যন্ত রোগী ভর্তি রয়েছে ৫০১ জন। এর মধ্যে আইসিইউতে ভর্তি রয়েছে ২০ জন। করোনা নিয়ে এ পর্যন্ত ভর্তি রয়েছে ২০৬ জন। এ ছাড়া উপসর্গ নিয়ে ভর্তি রয়েছে ২৩১ জন। করোনা ধরা পড়েনি হাসপাতালে ভর্তি ৬৪ জনের নমুনায়। এ ছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে ৭৪ জন। এই এক দিনে হাসপাতাল ছেড়েছে ৫২ জন।

বৃহস্পতিবার (০৮ জুলাই) রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতাল ল্যাবে ২৮২ জনের এবং রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ পিসিআর ল্যাবে ২৮০ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। এর মধ্যে রামেক হাসপাতাল ল্যাবে ৩২ ও রামেক ল্যাবে ৭২ জনের নমুনায় করোনা শনাক্ত হয়েছে। পরীক্ষার অনুপাতে রাজশাহীর ১৮ দশমিক ১৬ শতাংশ এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জের ২০ দশমিক ৪৮ শতাংশ নমুনায় করোনা শনাক্ত হয়েছে।

প্রসংগত গত ১ জুলাই ২২ জন, ২ জুলাই ১৭ জন, ৩ জুলাই ১৩ জন, ৪ জুলাই ১২ জন, ৫ জুলাই ১৮ জন, ৬ জুলাই ১৯ জন, ৭ জুলাই ২০ জন এবং ৮ জুলাই ১৮ জন প্রাণ হারিয়েছে রামেক হাসপাতালে। গত ২৯ জুন করোনা ইউনিটে সর্বোচ্চ ২৫ জন মারা যায়। করোনা সংক্রমণ শনাক্তের পর হাসপাতালে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড এটি।

গত বছরের এপ্রিল থেকে এই বছরের জুন পর্যন্ত রামেক হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে সাত হাজার ১৬১ জন রোগী। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়ে গেছে পাঁচ হাজার ৯২৭ জন। এই ১৪ মাসে মারা গেছে এক হাজার ৭৮ জন। এর মধ্যে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৩৪৬ জনের। অন্যদের মৃত্যু হয়েছে উপসর্গ নয়তো অন্যান্য শারীরিক জটিলতায়।

সর্বশেষ

ঈশ্বরদীতেও দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৭.৮ ডিগ্রি

পাবনার ঈশ্বরদীতে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। শুরু হয়েছে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ। ঘন কুয়াশা ও হিমেল বাতাসে বিপর্যস্ত হয়ে হয়ে পড়েছে জনজীবন।বুধবার (১১ জানুয়ারি)...

আফগানিস্তানে অন্তর্ভূক্তিমূলক আর্থ-সামাজিক অগ্রগতি দেখতে চায় বাংলাদেশ

প্রতিবেশী হিসেবে বাংলাদেশ আফগানিস্তানে অন্তর্ভুক্তিমূলক আর্থ-সামাজিক অগ্রগতি দেখতে চায়, যেখানে আফগান জনগণ তাদের উন্নত জীবনের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে পারে। সম্প্রতি আফগানিস্তানের উচ্চ শিক্ষা এবং...

গণতন্ত্রের নামে বাংলাদেশে অন্য রাষ্ট্রের হস্তক্ষেপের সুযোগ নেই বলছে রাশিয়া

গণতন্ত্রের অজুহাত দিয়ে বাংলাদেশ কিংবা অন্য কোনো দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে বাইরের কারো হস্তক্ষেপ করার সুযোগ নেই। কোনো রাষ্ট্রে স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের সুরক্ষায় জাতিসংঘের ঘোষণায়...

র‍্যাবের উপর নিষেধাজ্ঞা দেয়া হবেনা, লবিষ্টকে জেরার আপিল করতে পারবে বাংলাদেশ

যুক্তরাষ্ট্র এবং যুক্তরাজ্যে র‍্যাবের কার্যক্রমে নিষেধাজ্ঞা আরোপের ব্যপারে শক্তিশালী লবিস্ট নিয়োগ করা হলেও সে পদক্ষেপ ভেস্তে গিয়েছে।এরই মধ্যে র‍্যাপিড একশন ব্যাটালিয়ন-র‍্যাবের ব্যপারে নিষেধাজ্ঞার আবেদন...